health

সাদা চুল থেকে মুক্তি খুশকি দূর করতে পেঁয়াজের রস ব্যবহার করা উচিত।
Photo

পেঁয়াজ বিশ্বের অতি পরিচিত রন্ধনপ্রণালী। পেঁয়াজ ছাড়া বাঙালি রান্না, ভাবাই যায় না। পেঁয়াজ অনেক সুস্বাদু রান্নায় ব্যবহার করা হয়। এমনকি স্যালাড তৈরিতে পেঁয়াজ ব্যবহার করা হয়। পেঁয়াজ খাওয়ার উপকারিতা তো রয়েছেই পাশাপাশি স্বাস্থ্যের পক্ষে পেঁয়াজের উপকারিতা অনেক।পেঁয়াজের বহুবিধ উপকারিতা অনেকের অজানা। তাই তাদের জন্য এই নিবন্ধে রইল ত্বক, চুল এবং স্বাস্থ্যের জন্য পেঁয়াজের উপকারিতা পেঁয়াজ একটি ঝাঁজযুক্ত অসাধারণ সবজি, প্রকৃতির একটি উপহার। এটি ভিটামিনে ভরপুর সবজি। পেঁয়াজ বিভিন্ন উপায়ে বিভিন্ন পদ্ধতিতে ব্যবহার করা যেতে পারে। যেমন কোনো খাবারের সৌন্দর্যতার জন্য খাবারের উপরে ছড়ানো যেতে পারে বা রান্নার মশলা তৈরিতে অথবা রান্নাতে। সমীক্ষা দেখা যায়, লাল পেঁয়াজ স্তন এবং কোলন ক্যান্সারের কোষগুলি ধ্বংস করতে সবচেয়ে কার্যকর। যেস্মস্ত লোকেরা পেঁয়াজ সর্বাধিক মাত্রায় গ্রহণ করেছে তাদের ক্যান্সারের হার সর্বনিম্ন ছিল। কোষগুলির বৃদ্ধি বন্ধ করার ক্ষমতা রয়েছে পেঁয়াজে  যা স্তন এবং কোলন ক্যান্সারের কারণ হয়রেডিকেল শরীরের মধ্যে প্রবেশ করে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধি করে। পেঁয়াজ ক্যান্সারের কোষগুলি দ্রুত বৃদ্ধি রোধ করে। পেঁয়াজে রয়েছে সালফার যৌগ যা রেডিকেলের সঙ্গে লড়াই করে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। স্টাডিজে দেখা যায়, যারা প্রতিদিন কাঁচা পেঁয়াজ খায় তারা ক্যান্সারের হাত থেকে দূরে থাকে। ডায়াবেটিস একটি দীর্ঘস্থায়ী রোগ। ডায়াবেটিস পরিচালনা একটি বড় সমস্যা হল রক্তে শর্করার লেভেল বজায় রাখা। পেঁয়াজে রয়েছে ২৭ শতাংশ বায়োটিন। প্রাথমিক গবেষণা থেকে জানা যায় পেঁয়াজে উপস্থিত বায়োটিন এবং ক্রোমিয়ামের সংশ্লেষণ রক্তের শর্করার নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করতে পারে ডায়াবেটিস ঝুঁকি কমায়।পেঁয়াজে রয়েছে কোরেসটিন, যা হার্টের ক্ষেত্রে ভালো কাজ করে। এটিতে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের পাশাপাশি অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে হার্ট ভালো রাখে। পেঁয়াজ রক্তে প্লেটলেটগুলি একে অপরের সাথে লেগে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে পারে, যাতে রক্তের জমাট না বাঁধা এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি হ্রাস পায়।পেঁয়াজ রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রেখে, হার্টের অসুখ হওয়ার সম্ভবনা কমায়। এছাড়াও পেঁয়াজ কোলেস্টেরলের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণ রাখে যা হার্টের জন্য উপকারি। এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, পেঁয়াজে ফ্ল্যাভোনয়েড থাকে, যা স্থূল লোকের মধ্যে এলডিএল বাড়াতে দেয় না।কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা না থাকলে হজম ব্যবস্থা সঠিকভাবে কাজ করবে। পেঁয়াজে ঔষধি বৈশিষ্ট্যগুলি হজম সিস্টেমের উন্নতি করার ক্ষমতাও রয়েছে। পাকা পেঁয়াজের মধ্যে ফাইবার বেশি থাকে, যা কোষ্ঠকাঠিন্য এবং গ্যাসের মতো সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে।পেঁয়াজের মধ্যে কিছু প্রাকৃতিক উপাদান রয়েছে যা ডায়রিয়ার ক্ষেত্রে উপকারী। এছাড়াও এটি পেটে ব্যথা এবং পেটের কৃমি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে।গবেষণায় দেখা গেছে, পেঁয়াজের রস রক্তে সুগারের মাত্রা কমাতে পারে। পেঁয়াজের সালফার যৌগগুলি এবং কোরেসটিন রক্তে শর্করার উপর উপকারী প্রভাব ফেলতে পারে।জ্বর বা সর্দি কাশি হলে পেঁয়াজ ঘরোয়া প্রতিকার হিসাবে ভালো কাজ করে। শুনলে অবাক হবেন পেঁয়াজ খেলে জ্বর, সর্দি কাশি সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। প্রাচীনকালে জ্বর এবং সর্দি সমস্যা হলে পেঁয়াজ ব্যবহার কড়া হত। এছাড়াও লোকের নাক থেকে রক্তক্ষরণের সমস্যা রয়েছে, তাদের জন্য পেঁয়াজের রস ঔষধ হিসাবে কাজ করে।সর্দি কাশির ক্ষেত্রে পেঁয়াজের রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে উপকার পাবেন। পেঁয়াজ খাওয়ার সুবিধার মধ্যে রয়েছে জ্বর এবং কাশি থেকে মুক্তি উপায়।পেঁয়াজে রয়েছে প্রিবায়োটিক যা ভাল ঘুম এবং স্ট্রেস থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে। অন্ত্রে উপকারী ব্যাকটিরিয়াগুলি যখন প্রিবায়োটিক ফাইবার হজম করে, তখন অন্ত্রের স্বাস্থ্য ভালো কাজ করে। এছাড়াও বিপাকীয় উপজাতগুলি মস্তিষ্কের ক্রিয়াকে প্রভাবিত করে এবং গভীর ঘুমে সাহায্য করে।

Search

Follow us

Read our latest news on any of these social networks!


Get latest news delivered daily!

We will send you breaking news right to your inbox

About Author

Like Us On Facebook

Calendar